মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১

admin | অন্যান্য জনপ্রিয় জাতীয়

প্রকাশ: রবিবার, জুলাই ১৯, ২০২০

উদ্যোক্তা হিসেবে নারীরা এখন অনেকটাই সফল। বিভাগীয় শহরগুলোতে উদ্যোক্তারা বেশি সুবিধা পেয়ে থাকেন। তুলনামূলক কম সুযোগ সুবিধা থাকা স্বত্বেও মফস্বল শহরের নারীরা উদ্যোক্তা হিসেবে এগিয়ে আসছেন। লক্ষ্মীপুরের দিল আফরোজা মিতু ও হাসনা আবেদিন দুই গৃহবধূ এই তালিকায় যুক্ত হয়েছেন। নারীদের জন্য তারা অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালু করেছেন। এগিয়ে চলেছেন স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে।

মিতু সৌদি আরব প্রবাসী ইব্রাহিম খলিলের স্ত্রী। তার বাবার বাড়ি লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড বাঞ্চানগর এলাকায়। ব্যবসায়িক অংশীদার হাসনা তার ভাই শরীফ হোসেনের স্ত্রী। হাসনা লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ থেকে রসায়ন বিভাগে বিবিএ (অনার্স) পাশ করেছেন।

তাদের প্রতিষ্ঠানের নাম ‘ডিভাস আউট ওয়্যার’ (Divas out wear)। যেখানে মেয়েদের থ্রি-পিস, ওয়ান পিস, ফোর-পিস, শাড়ি পাওয়া যায়। তাদের অনলাইন বাজারে বাটিকের বিছানার চাদরও পাওয়া যাচ্ছে। লক্ষ্মীপুর ভিত্তিক এই প্রতিষ্ঠানটির জামা-বিছানার চাদর বিক্রিতে ভালোই চাহিদা রয়েছে।

এ ব্যাপারে হাসনা আবেদিন জানান, মিতুর অনুপ্রেরণায় তিনি অংশীদার হয়ে অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা শুরু করেছেন। শুরু থেকেই ভালো সাড়া মিলছে। তারা এখন পাইকারি দোকান থেকে জামা-কাপড়গুলো কিনে এনে বিক্রি করছেন। খুব শিগগিরই নিজেদের প্রতিষ্ঠান থেকেই এসব জামা কাপড় তৈরি করে বিক্রির আশা রয়েছে তাদের।

জানতে চাইলে প্রধান উদ্যোক্তা দিল আফরোজা মিতু জানান, খুব কম বয়সে তার বিয়ে হয়েছে। তার সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। বিয়ের পরে তিনি এইচএসসি ও ডিগ্রি পাশ করেন। বর্তমানে তিনি মাস্টার্স ও প্যারামেডিকেলে অধ্যয়নরত। বিয়ের পর থেকে পড়ালেখাসহ সকল কাজে তার স্বামী ইব্রাহিম খলিলের সহায়তা ও সমর্থন পেয়েছেন।

তিনি জানান, শুধু স্বামীর ওপর নির্ভরশীল থাকাটা উচিত নয়। দীর্ঘদিন থেকে তিনি চেয়েছেন নিজের একটা পরিচয় হোক। সেই ইচ্ছা থেকেই এ ব্যবসা শুরু করেছেন তিনি। তবে অংশীদার হিসেবে তিনি বেছে নিয়েছেন তার কাছের বন্ধু ও তার ভাবি হাসনা আবেদিনকে। এখন অন্যদের কাছ থেকে জামা-কাপড় কিনে এনে বিক্রি করলেও একদিন তাদের একটা ব্রান্ড হবে বলে তার আশা। তার লক্ষ্য একদিন নিজেরাই জামা-কাপড় তৈরি করে বিক্রি করবেন।

Ad The It King