মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১

admin | জনপ্রিয় জাতীয়

প্রকাশ: বুধবার, এপ্রিল ৮, ২০২০

মোঃ মাছুম বিল্লাহ সজীব:– এটি মিথ্যা নয় একদম সত্যি ঘটনা। রাজধানী ভাটায়ার একটি ছোট ফেসবুক গ্রুপ থেকে এমনি একটি মহৎ উদ্যোগ নেয় হেল্প এ্যান্ড হেল্পলেস গ্রুপ। এই “হেল্প এন্ড হেল্পলেস” গ্রুপটি প্রতিষ্ঠাতা শিবলি আহমেদ রায়হান। বাংলাদেশ সরকার যখন নোভেল করোনা ভাইরাসের মহামারীর সময় লকডাউন ঘোষণা করে দিলেন।

ঠিক তখন থেকেই ঘরে বসে একটি মহত্ত্বের উদ্যোগ নিলেন শিবলি আহমেদ রায়হান। জানা গেছে গত ২০২০ ইং ২৮ শে মার্চ তারিখ থেকে এবং এই পর্যন্ত প্রায় ২০০ টি পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী দিতে সক্ষম হয়েছেন। এই গ্রুপটির ইচ্ছা আছে যদি তাদেরকে কেউ সাহায্য করে তাহলে তারা আরো কিছু সাধারণ মানুষ এবং মধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দিবে।

ঘটনাক্রমে ব্যাপারটি সাংবাদিকদের চোখে পড়ে নিশ্চুপ ভাবে একটি বাসায় গিয়ে উপস্থিত হয় হেল্প এন্ড হেল্পলেস গ্রুপটি সাথে তিনজন মানুষ একজন খাবার দিচ্ছেন আর দুজন গিয়ে খাবারটি একটি পরিবারের হাতে তুলে দিচ্ছেন। নিশ্চুপ ভাবে ত্রাণসামগ্রী হাতে তুলে দিচ্ছেন মধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে। সাথে কোন সেলফি, ছবি তোলার কোন কথাই নেই।

চুপচাপ বের হয়ে যাচ্ছে কয়েক জন তরুণ যুবক। গ্রুপটিকে পর্যবেক্ষণ করে সাংবাদিক। পরবর্তীতে সাংবাদিকরা সরাসরি জানতে চাই কেনই বা এরকম এই কাজগুলো করছেন! পরবর্তীতে গ্রুপটির প্রতিষ্ঠাতা নিজে সাংবাদিকদের জানালো যে, আমি এবং আমার ছোট বেলার বন্ধুরা মিলে একটি গ্রুপ ওপেন করি ফেসবুক এ। সেই ফেসবুক গ্রুপ থেকে তাড়াতাড়ি আর্থিক সাহায্য পাই।

যে যতটুকু পেরেছে সেখান থেকে সে ততটুকু সাহায্য করেছে। এর মধ্যে আমার কিছু বন্ধুদের কথা না বললে নয়। তারা হলো “রাজিব, লিটন, শাকিল, তপু, রুমি, তাওহিদ, জনি, নাদিয়া, সুবনা, সামান্তা, শিখা, ইমা, মুন্নি, রাশেদ, রবিউল, ইমন, ইব্রাহিম, রাকিব, জিয়ানা, জিদান, নিমনি, রাসেল, মহসিন এবং জশিম”। ওদের অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে আমি এই গ্রুপটি প্রতিষ্ঠা করতে পারি।

তারা আমাকে প্রচন্ড সাপোর্ট দিয়েছেন এবং প্যাকেট জাত এবং বিভিন্ন বাসায় গিয়ে গিয়ে পৌঁছে দিতে ওরা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে। তাই আমি আমার সকল বন্ধুদের কাছে কৃতজ্ঞ। তারা আমার এই ছোট্ট একটি উদ্যোগকে স্বাগতম জানিয়েছেন। আমরা চাই আরো কিছু মানুষের পাশে দাঁড়াতে। যারা লাইনে দাঁড়ানোর সাহস টুকু পায় না যারা মুখ ফুটে বলতে লজ্জা পায়।

যে তাদের কিছু খাবার দরকার। আমি ঠিক তাদের পাশে দাঁড়াই। আপনাদের সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি সবাই একটু এগিয়ে আসুন আর ছবি তোলা যে ব্যাপারটি, আমি জানি প্রত্যেকটি মানুষের একটি আত্মসম্মানবোধ রয়েছে। তাই ঠিক সেখান থেকে সামান্য কিছু খাবার দিয়ে একটি ছবি তোলা থেকে আমরা যেন সবাই বিরত থাকি। সবাইকে একটি রিকোয়েস্ট করব আসুন আমারা সবাই সবার পাশে এসে দাঁড়াই। সবাই হেল্প এন্ড হেল্পলেস গ্রুপটি জন্য দোয়া করবেন।

হেল্প এন্ড হেল্পলেস শুধু আমি একা না আমার সবাই মিলে হেল্প এন্ড হেল্পলেস গ্রুপ। তরুণ সমাজ যেখানে সারাক্ষণ ফেসবুক নিয়ে বসে থাকে ঠিক সেই তরুণ সমাজ বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের মনুষত্ববোধ থেকে তারা মধ্যবিত্তদের পাশে এসে দাঁড়াল। আসুন আমরা সবাই এরকম ছাত্র-ছাত্রী,তরুণদের পাশে এসে দাঁড়াই এবং সাহায্য করি।

Ad The It King