শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১

admin | অন্যান্য অপরাধ জনপ্রিয়

প্রকাশ: সোমবার, ডিসেম্বর ২, ২০১৯

স্বামী মাহবুবুর রহমান থাকতেন ঢাকায়, স্ত্রী রোকসানা ভৈরবে। স্বামীর অনুপস্থিতিতে প্রায় ১০ বছরের ছোট এক ছেলের সাথে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন স্ত্রী। প্রতি সাপ্তাহিক ছুটি স্বামী বাড়ি এলে পরকীয়া প্রেমিকের সাথে শারীরিক মেলামেশায় সমস্যা হতো তাই প্রেমিক হাসিবের সাথে মিলে স্বামীকে খুন করে ডাকাতদের হামলা বলে চালিয়ে দেন স্ত্রী। পরে তাদের জবানবন্দিতে অসঙ্গতি পেয়ে পুলিশ তাদের আটক করে এবং আবিষ্কার করে এরা দু’জনই খুন করেছেন। রবিবার (১ ডিসেম্বর) কিশোরগঞ্জ আদালতের বিচারপতির খাসকামরায় ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় রোকসানা ও হাসিব।

জবানবন্দিতে হাসিব বলেন, রোকসানার সাথে ছয়মাস যাবত প্রেমের সম্পর্ক। তার স্বামী প্রতি সপ্তাহে ঢাকা থেকে ভৈরবের বাসায় আসলে দুজনের শারীরিক মেলামেশায় সমস্যা হয়। একারণে দুজনে মিলে হত্যার পরিকল্পনা করি। পরিকল্পনা অনুযায়ী গত বুধবার রাতে আমি বাজারের ইসা ফার্মেসী থেকে কয়েকটি ঘুমের ট্যাবলেট কিনে তার স্ত্রীকে দেই। রাতে তার স্ত্রী ঘুমের ট্যাবলেট খাওয়াইয়া অচেতন করে। গভীর রাতে খবর দিলে আমি রুমে প্রবেশ করে তাকে একাধিকবার ছুরিকাঘাত করে হত্যা করি।

ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি) মোঃ শাহীন জানান, স্ত্রী রোকসানা ও প্রেমিক হাসিব হত্যার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করার পর তারা দুজন রোববার বিকেলে কিশোরগঞ্জ আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে হত্যার পরিকল্পনাসহ সব ঘটনা স্বীকার করে।

Ad The It King