মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১

admin | অন্যান্য জনপ্রিয়

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৯

পরিস্থিতি অনুকূলে না থাকায় কখনো সখনো প্রায় প্রত্যেকেই দীর্ঘক্ষণ প্রস্রাব আটকে রাখেন। অনেকেই হয়তো লম্বা দুরত্বে যাচ্ছেন, রাস্তায় অনেকটা সময় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেয়া থেকে বিরত থাকেন। হয়তোবা পাবলিক টয়লেট দেখেও বিরক্তিতে মুত্র চেপেই রাখেন। 

প্রস্রাব চেপে রাখাটা যে ক্ষতিকর, তা কেউ বলে না দিলেও আমরা বুঝি, কিন্তু এরপরেও কাজটা সবাই করে থাকেন। আবার অনেকে ঘরে বসেই আলসেমি করেও অনেক্ক্ষণ প্রস্রাব চেপে রাখেন। কেউবা রাতে ঘুমের মধ্যে প্রস্রাব আটকে রাখেন। মুত্র চেপে রাখলে ভালো কিছু হয় না।

ব্লাডার দুই কাপের মতো মুত্র ধারণ করতে পারে। দুই কাপ পূরণ হয়ে গেলে আমাদের মস্তিষ্কে সিগন্যাল যায় যে এখন ব্লাডার খালি করতে হবে। আপনি যদি এ সিগন্যাল উপেক্ষা করেন এবং আরও বেশি পরিমাণে মুত্র চেপে রাখেন তাহলে ব্লাডারের সিলিন্ড্রিক্যাল স্ফিঙ্কটার খুব শক্ত হয়ে বন্ধ হয়ে থাকে যাতে কোনো তরল বের হতে না পারে।

এমনকি কখনো কখনো (খুবই দুর্লভ সব অবস্থায়) ব্লাডার ফেটেও যেতে পারে। বেশি সময় ধরে মুত্র চেপে রাখলে ক্ষতি আপনারই হবে। আর ঘন ঘন এভাবে মুত্র চেপে রাখতে থাকলে আপনার শরীরে দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতি হয়ে যাবে। 

ইউরিনারি রিটেনশন, ইনফেকশনের সম্ভাবনা বেড়ে যাওয়া এমন সমস্যা হতেই পারে। সাধারণত নারীরা ৩ থেকে ৬ ঘন্টা মুত্র চেপে রাখতে পারেন। কিন্তু এটা প্রতিটি মানুষের ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা হয়। এ কারণে যতো দ্রুত সম্ভব ব্লাডার খালি করে ফেলতে হবে।

Ad The It King