সাড়া পেল ‘আসিফ’ আকবরের সিনেমা

0
81

সুপারস্টার গায়ক আসিফ আকবরের ভক্তরা নিজেদের ‘আসিফিয়ান’ বলে অভিহিত করেন। তাদের প্রতীক্ষার অবসান ঘটলো ২০ ডিসেম্বর। এদিন সারাদেশে মুক্তি পেয়েছে চলচ্চিত্র ‘গহীনের গান’। জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক সাদাত হোসাইনের পরিচালনায় এই ছবি দিয়ে সিনেমার নায়ক হিসেবে অভিষিক্ত হলেন আসিফ। সিনেমার এই মন্দার বাজারে জনপ্রিয় গায়ক থেকে সিনেমার নায়ক হিসেবে সফল হওয়ার স্বপ্ন দেখাটা নিতান্তই এক ঝুঁকি। বিরাট চ্যালেঞ্জও। সেই ঝুঁকি নিয়ে চ্যালেঞ্জ জয় করলেন আসিফ আকবর। সব জল্পনা কল্পনাকে উড়িয়ে দর্শক টানতে সক্ষম হয়েছে তার প্রথম সিনেমা ‘গহীনের গান’।

২০০১ সালের ৩০ জানুয়ারি সাউন্ডটেকের ব্যানারে মুক্তি পায় ‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’ গানের অ্যালবাম। ততদিনে অবশ্য এই গান ও গানের চঞ্চল যুবক গায়ক আসিফ আকবর ‘ইত্যাদি’র কল্যাণে তারকা বনে গেছেন দেশজুড়ে। সেই অ্যালবামটি পরবর্তীতে ব্লকবাস্টার হিট হয়। সেই সময় অ্যালবামটির ৬০ লক্ষেরও বেশি কপি বিক্রি হয়েছে বলে জানা যায় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সূত্রে। যা বাংলাদেশ ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ আয়কারী অডিও অ্যালবাম হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে। সেই রাজকীয় অভিষেকের গায়ক আসিফ আকবর যেন সিনেমাতেও তার পুনরাবৃত্তি ঘটাতে চলেছেন। ছবি মুক্তির প্রথমদিনেই দারুণ সাড়া পেয়েছে ‘গহীনের গান’। যমুনার ব্লকবাস্টার সিনেমাস, বলাকা সিনেওয়ার্ল্ড, শ্যামলীর সিনেপ্লেক্স, মধুমিতার মতো ঢাকার বড় হলগুলোতে সেই চিত্রই দেখা গেল।

মানুষের নিঃসঙ্গতার এক নান্দনিক গল্পে ‘গহীনের গান’ নির্মাণ করেছেন সাদাত হোসাইন। যেখানে দেখা গেছে একটা সময় জীবন ও জীবীকার তাগিদে ছেলেমেয়েরা দূরে চলে যাবার পর বাবা-মায়েরা ভীষণ নিঃসঙ্গ থাকেন। সন্তানের জন্য বাবা-মা সেই কষ্টও মুখ বুজে সয়ে যান। সেই চিত্রই ফুটে উঠবে ছবিটিতে। তেমনি মানুষের বিবাহিত সম্পর্কের টানাপোড়েন দেখা যাবে। ‘গহীনের গান’ সিনেমায় আসিফের সঙ্গে আরও অভিনয় করেছেন নন্দিত অভিনেতা সৈয়দ হাসান ইমাম। আছেন তমা মির্জা, তানজিকা আমিন, আমান রেজা, কাজী আসিফ, তুলনা প্রমুখ। ছবিতে রয়েছে ৯টি গান। এগুলোর বেশির ভাগই লিখেছেন, সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন তরুণ মুন্সী। দুটি গান লিখেছেন রাজীব আহমেদ আর একটি লিখেছেন পরিচালক সাদাত হোসাইন নিজে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here