সাবেক হ্যান্ডসম বলেই আর কাউকে মনে ধরলো না: শ্রীলেখা

0
42

‘সাবেক’ স্বামী সিনেমাটোগ্রাফার শিলাদিত্য মৌলিককে কি মিস করছেন শ্রীলেখা মিত্র? ১৭ বছর আগে আজকের দিনে অর্থাৎ ২০ নভেম্বর বিয়ে করেছিলেন তারা। বিয়ের মুহূর্তের সাদা-কালো দু’টো ছবি পোস্ট করে স্মৃতি ভাগ করে নিয়েছেন অভিনেত্রী।

সঙ্গে মনছোঁয়া ক্যাপশন, ‘আজ হতে পারতো আমাদের ১৭ তম বিবাহবার্ষিকী। হ্যান্ডসাম না আমার সাবেক? তাই তো আর সেভাবে কাউকে মনে ধরলো না…।

সঙ্গে বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ, ‘দুঃখের ইমোজি আর শুভ বিবাহবার্ষিকী বললে ততক্ষণাৎ আনফ্রেন্ড করব!’

শ্রীলেখা স্মৃতিতে ডুব দিলেন? বাকি তারকারা যখন বিয়ে, বিবাহ বিচ্ছেদ ‘পুরোটাই ব্যক্তিগত’ বলে এড়িয়ে যান তখন এই রকম স্পর্শকাতর বিষয় নিয়েও কথা বললেন অভিনেত্রী।

বলেন, ভারাক্রান্ত নয়, মনে পড়ছে। মনে করছি। আজকের দিনেই তো ভালোবেসে সাত পাক ঘুরেছিলাম। আমার মেয়ের বাবা আফটার অল। তাকে ভুলি বা অস্বীকার করি কী করে?

এ কথাও জানাতে ভুললেন না, জীবনসঙ্গী পছন্দের ক্ষেত্রে মানসিকতার পাশাপাশি বাহ্যিক রূপের দিকেও জোর দেন তিনি। একটু খুঁতখুঁতেমি আছে তার এ ব্যাপারে। তাই-ই এতো বছরেও আর কাউকে বেছে নিতে পারলেন না। এখনো তার চোখে সেরা ‘হ্যান্ডসাম’ তার ‘সাবেক’।

শিলাদিত্যও কি বিশেষ দিনে এভাবেই মনে করেন শ্রীলেখাকে? কথা হয় এই দিনে তাদের? শ্রীলেখা আত্মবিশ্বাসী, নিশ্চয়ই মনে করে! হয়তো আমার মতো করে প্রকাশ করে না। আমাদের মধ্যে কোনো তিক্ততা নেই। ফলে, মনে না করারও কোনো কারণ নেই। তাছাড়া, আমার মধ্যে রসবোধ যথেষ্ট। নিজেকে নিয়ে মজা করতে ভালোবাসি। সেটা আজকের পোস্ট আর ক্যাপশন দেখলেই বোঝা যাবে। আমার কোনো বিষয় নিয়েই ন্যাকামি নেই, সেটাও বুঝে গিয়েছেন অনুরাগীরা।

শ্রীলেখার আরো দাবি, দু’জন ভালো মানুষও চিরকাল এক ছাদের নীচে না-ই থাকতে পারেন। বন্ধুত্ব রয়েই যায়। তাই শিলাদিত্য-শ্রীলেখার মেয়ে ‘হ্যাপি চাইল্ড’। আমরা একে অন্যের বাড়ি যাই। কথা হয়। শুধু ছাদটুকু শেয়ার করি না, এই যা।

এটা কি অনেক লড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে যাওয়া শ্রীলেখার উপলব্ধি? উত্তরে বলেন, বলতে পারেন পরিণতমনস্কতা। আমি যেমন ১’তে আটকে, অনেকে হয়তো একাধিক বার ‘সোল মেট’ খোঁজেন। সেটাও অন্যায় নয়। কারোর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কাটাছেঁড়া করার অধিকার বোধহয় কারোরই নেই। ঠিক যেমন বেডরুমে ঢোকার কোনো অধিকার থাকে না বাইরের লোকের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here