শনিবার, নভেম্বর ২৭, ২০২১

admin | বিনোদন

প্রকাশ: শনিবার, অক্টোবর ৩১, ২০২০

মাত্র তিন বছর বয়সে আমাকে যৌন হেনস্থা করা হয়েছিল: ফতিমা সানা শেখ

কেরিয়ারে একাধিকবার না শুনতে হয়েছে তাঁকে। সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে নিজের জীবনের নানা ঘটনা দর্শকদের সঙ্গে শেয়ার করে নিলেন অভিনেত্রী ফতিমা সানা শেখ। দীপিকা পাড়ুকোন বা ঐশ্বর্য রাই বচ্চনের মতো দেখতে না হওয়াটা কী ভাবে তাঁর কেরিয়ারে প্রভাব ফেলেছে, সে কথাও জানিয়েছেন নায়িকা। আমির খানের ‘দঙ্গল’ ছবি দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু করেছিলেন ফতিমা। ছবিতে অভিনয়ের জন্য যথেষ্ট প্রশংসাও পেয়েছিলেন। ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসেও দঙ্গলের অবদান প্রচুর।

তার পরেও অসংখ্য ছবিতে তাঁকে না শুনতে হয়েছে। অফার এসেও শেষ পর্যন্ত কাজ হাতছাড়া হয়েছে ফতিমার। তিনি বলেছেন, ‘আমাকে এটা বহুবার বলা হয়েছে যে তুমি কোনওদিন নায়িকা হতে পারবে না। তুমি দীপিকা, ঐশ্বর্যর মতো দেখতে না। কী ভাবে তুমি নায়িকা হবে? বহু লোক আছে যারা আপনাকে পিছনের দিকে ঠেলবে। কিন্তু আমি এখন যখন পিছনে তাকাই, আমার মনে হয় ঠিকাছে। এটাই সৌন্দর্যের মাপকাঠি এখানে। ঠিক তাঁদের মতো দেখতে হলেই নায়িকা হওয়া যাবে। আর আমি কোনও ভাবেই ওই ব্র্যাকেটে পড়তাম না। আমি সব সময়ই আলাদা। কিন্তু এখন সুযোগ রয়েছে। আমার মতো সাধারণ দেখতে মানুষকে নিয়েও ছবি তৈরি হচ্ছে।’

ফতিমা এই সাক্ষাৎকারেই ছোটবেলার এক ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেছেন। মাত্র তিন বছর বয়সে কী ভাবে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছিলেন তিনি, সেকথাও শেয়ার করেছেন তিনি। বলেছেন, ‘আমাকে বহু লোকেরা বলেছে সেক্সের বিনিময়েই কাজ পাওয়া যাবে। … ইন্ডাস্ট্রিকে সেক্সিজম খুবই গুরুত্বপূর্ণ কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে। সব ইন্ডাস্ট্রিতেই থাকে। আমার মনে পড়ে আমি ৫ বছর না, ৩ বছর বয়সে যৌন হেনস্থার শিকার হয়েছিলাম। প্রতিদিন সব মেয়ে এই যুদ্ধে সামিল। আশা করি ভবিষ্যৎটা ভালো হবে।’

ফতিমা সানা শেখের হাতে পর পর বেশ কয়েকটি সিনেমা রয়েছে। লুডোর পরই রয়েছে সূরয পে মঙ্গল ভারি।