বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৮, ২০২১

admin | বিনোদন

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১, ২০২০

ধর্ষণের স্থানেই ধর্ষকদের গুলি করে মারা হোক : কঙ্গনা

হাথরস কাণ্ডে ফুঁসছে পুরো ভারত। আইনি পথে অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবি উঠছে সর্বত্র। কিন্তু সে সবে না গিয়ে, অভিযুক্তদের সরাসরি এনকাউন্টার করে মেরে ফেলার দাবি জানালেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। গত বছর হায়দরাবাদে ঘটে যাওয়া পশু চিকিৎসক ধর্ষণকাণ্ডের তুলনা টেনে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কাছে এই আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

হায়দরাবাদ ধর্ষণকাণ্ডে পুলিশের গুলিতে অভিযুক্তদের ঘটনা নিয়ে সেইসময় কম বিতর্ক হয়নি। অভিযুক্তরা পালানোর চেষ্টা করায় তাদের গুলি করা হয় বলে সেইসময় দাবি করে সেখানকার পুলিশ। যদিও অনেকের দাবি ছিল, ভুয়া এনকাউন্টারে মেরে ফেলা হয়েছে অভিযুক্তদের। সেই প্রসঙ্গ টেনেই বুধবার নিজের টুইটার হ্যান্ডলে কঙ্গনা লেখেন, ‘‘যোগী আদিত্যনাথজির ওপর পূর্ণ আস্থা রয়েছে আমার। প্রিয়াঙ্কা রেড্ডিকে তার ধর্ষকরা যেখানে ধর্ষণ করেছিল এবং জীবন্ত জ্বালিয়ে দিয়েছিল, সেখানেই যেন তাদের গুলি করে মারা হয়। এ ক্ষেত্রেও সেরকমই সংবেদনশীল, স্বতঃস্ফূর্ত এবং আবেগতাড়িত বিচার চাই আমরা।’

মঙ্গলবারও টুইটারে একই দাবি তুলেছিলেন কঙ্গনা। প্রকাশ্যে অভিযুক্তদের গুলি করে মারার দাবি তুলে তিনি লেখেন, ‘‘ধর্ষকগুলোকে প্রকাশ্যে গুলি করে মারা হোক। প্রতি বছর যেভাবে ধর্ষণের ঘটনা উত্তরোত্তর বেড়ে চলেছে, তার সমাধান আর কীইবা হতে পারে? আজকের দিনটি দেশের জন্য অত্যন্ত দুঃখের এবং লজ্জার। এ আমাদেরই লজ্জা। আমাদের জন্যই দেশের মেয়েদের এই হার।’’  

গত ১৪ সেপ্টেম্বর উত্তরপ্রদেশের হাথরসে ১৯ বছরের এক দলিত তরুণীকে চার যুবক গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। অকথ্য অত্যাচার চালানো হয় তার উপর। ক্ষত বিক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। তার পর ১৪ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছিলেন ওই নির্যাতিতা। শেষ মেশ মঙ্গলবার দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে তার লড়াই থেমে যায়।

পুরো ঘটনায় উত্তরপ্রদেশের আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে নতুন করে সমালোচনার মুখে পড়েছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার।