বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৮, ২০২১

admin | বিনোদন

প্রকাশ: শনিবার, অক্টোবর ৩, ২০২০

‘ছেলেমেয়ে পাশে, তবু তারা আমাকে বিব্রত করল’

শুটিং নেই। বাসায় দিন কাটাচ্ছিলেন তাসনুভা তিশা। দিন শেষে ভক্তদের সঙ্গে আড্ডা দিতে বসেছিলেন ফেসবুক লাইভে, সঙ্গে দুই সন্তান। সেই আড্ডায় একের পর এক প্রশ্ন করতে থাকেন ভক্তরা। সেসবের জবাব দিতে গিয়ে বহুবার থমকে যেতে হয়েছে তিশাকে। মন্তব্যের ঘরে এমন সব প্রশ্ন আসছিল, যেগুলো ঠিক প্রশ্ন নয়, বুলিং। সেই লাইভে সন্তানদের সামনে রীতিমতো বিব্রত হতে হয়েছে এই অভিনেত্রীকে।

লাইভে এসেই তিশা তাঁর দুই সন্তানের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন বন্ধু ও অনুসারীদের। বড় মেয়ে ইশরাত রাইয়ান এশি এ বছর পা রেখেছে ১১ বছরে, ছেলে ফারাজ মুতাজ্জিমের বয়স ৭ বছর। ফারাজ পাশেই ছিল, লাজুক এশি কিছুটা দূরে। মাঝে মাঝে উঁকি দিচ্ছিল মায়ের লাইভে। তিশা প্রথমেই বলেন, ‘আমরা ছবি দেখতে দেখতে একটু বোর ছিলাম। ভাবছিলাম কীভাবে সময় কাটাব। পরে মনে হলো, যাঁরা আমার কাজ পছন্দ করেন, তাঁদের সঙ্গে একটু সময় কাটাই। সে জন্যই লাইভে এসেছি।’

মেকআপহীন সাদামাটাভাবে লাইভে আসায় তিশাকে দেখাচ্ছিল সাধারণ একজন নারীর মতোই। সেখানে একজন মন্তব্য করেন, ‘আপু, আপনাকে দেখতে ১৪ আগস্ট সিরিজের ঐশির মতো লাগছে।’ উত্তরে তিনি বলেন, ‘বাসায় সেজেগুজে থাকি না।’ এরপর একের পর এক প্রশ্ন আসতে থাকে। ছেলেকে পাশে বসিয়েই সেসবের উত্তর দেন তিশা। হঠাৎ এই অভিনেত্রীকে থেমে যেতে হয়। তাঁর মুখ থেকে বেরিয়ে আসে, “মানুষ এমন প্রশ্ন কীভাবে করে!” কখনো বিরক্ত হয়ে মুখ ঘুরিয়ে নেন, আবার কখনো বলেন, ‘বাচ্চাদের সামনে এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়া যাবে না।’

প্রশ্ন, প্রতিক্রিয়া, আহ্বানের মধ্যে ছিল, ‘আপনি আমার এক্স গার্লফ্রেন্ডের মতো, আসেন একদিন দেখা করি’, ‘চলো, আমরা গোপনে দেখা করি’, ‘মিডিয়ার মানুষদের আবার বিয়ে করা লাগে’। কিছু মানুষ তাঁর সন্তানদের নিয়েও কটু মন্তব্য করেন। এসবের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি খুব একটা লাইভে যাই না। মানুষ খুব বাজে কমেন্ট করে। গতকাল বাচ্চারা পাশে থাকার পরও কিছু মানুষ এমন সব মন্তব্য করেছে, যা মুখে আনা যাবে না। কিছু মানুষ এমনই। যাদের শিক্ষা নেই, জ্ঞানবুদ্ধি, বিবেক কিছুই নেই। তারা দেখল, আমার ছেলেমেয়ে পাশে, তবু তারা আমাকে বিব্রত করল।’ ফেসবুকে তাঁর পোস্ট করা ছবিগুলোতে অশ্লীল মন্তব্য করায় কমেন্ট অপশন বন্ধ করে দিয়েছেন এই অভিনেত্রী।

তিশাকে লাইভে পেয়ে অনেকেই অভিনন্দন জানান, তাঁর অভিনয়ের প্রশংসাও করেন। মিয়াজি মেহরাব লেখেন, ‘আপনার সোজাসাপটা কথা বলা এবং ভঙ্গিতাহীন সাবলীল অভিনয় আমার খুব ভালো লাগে। সন্তাদের নিয়ে ভালো থাকবেন।’ তন্ময় খান লিখেছেন, ‘জানতাম, আপনার সন্তান আছে।’ তিশা জানান, প্রসংশা করলে খুব ভালো লাগে। তাঁরা চাইলে কাজ নিয়ে কথা বলতে পারেন।’

বেশ কিছুদিন টানা কাজ করে কিছুদিন অবকাশ নিয়েছেন তাসনুভা তিশা। ১০ অক্টোবর আবারও শুটিং শুরু করবেন তিনি। তবে শুটিংয়ের চেয়ে বাড়িতে সময় কাটাতেই বেশি ভালো লাগছে তাঁর। টেলিভিশনে তাঁর অভিনীত নাটকগুলো বিশেষ প্রশংসা কুড়ায়। ওয়েবে ‘আগস্ট ১৪’ ধারাবাহিকে ঐশি চরিত্রটি তাঁকে নতুন করে আলোচনায় আনে।