1. techostadblog@gmail.com : Fit It : Fit It
  2. mak0akash@gmail.com : AL - AMIN KHAN : AL - AMIN KHAN
  3. admin@sangbadbangla.com : admin :
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:০৯ অপরাহ্ন

চার বছর ধরে মানসিক অবসাদের শিকার আমির-কন্যা ইরা!

Reporter Name
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১২ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৩৯ বার পঠিত

বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস (১০ অক্টোবর) উপলক্ষেই এই স্বীকারোক্তি আমির খানের মেয়ে ইরার। প্রায় চার বছর ধরে তিনি ক্লিনিকাল ডিপ্রেশন অর্থাৎ মানসিক অবসাদের শিকার। ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিয়ো শেয়ার করে নিজের পরিস্থিতির কথা জানিয়েছেন ইরা খান। মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতিকে কী ভাবে তিনি সামলেছেন সেকথাও শেয়ার করেছেন ইরা।

তিনি বলেছেন, ‘আমি অবসাদগ্রস্ত। চার বছরেরও বেশি সময় ধরে আমি মানসিক অবসাদে ভুগছি। এখন একটু ভালো আছি। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে আমি মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য কিছু একটা করতে চাই। কিন্তু কী করব ভেবে পাচ্ছিলাম না। তারপর মনে হল আপনাদের একটা যাত্রাপথের গল্প শোনাই। আমার যাত্রাপথের কাহিনি। দেখি কী হয়। আশা করি আমরা নিজেদের আরও ভালো করে বুঝতে পারব। মানসিক অবসাদকে ভালোভাবে বুঝতে সক্ষম হব।’

এর পরে ইরা লেখেন, ‘কেন আমি হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ব? কী কারণে এই অবসাদ? আমার তো সবই আছে, তাই না!’ আরও অনেকের মতো ইরাও মনে করেন, শরীরকে ভালো রাখতে আমরা যতটা গুরুত্ব দিই, মনের স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে ততটা গুরুত্ব দিই না। মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়লে ঘরে বসে না থেকে খোলাখুলিভাবে যে তা নিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে বা প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত সেটাও অনেকে মনে করেন না। সেই ধ্যানধারণা বদলাতেই ইনস্টাগ্রামে ইরার এই ভিডিয়ো।

কয়েকদিন আগেই ট্যাটু করার জন্য ধর্মীয় নীতিপুলিশির শিকার হন আমির খানের মেয়ে ইরা খান। ইরা নতুন নতুন কাজে নিজেকে ব্যস্ত রাখতে পছন্দ করেন। সম্প্রতি তিনি ট্যাটু করতে শিখেছেন। ইনস্টাগ্রামে সেই ট্যাটুর ছবিও শেয়ার করেছেন ইরা। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘বাকেট লিস্ট আইটেম ৫, আমি আমার প্রথম ট্যাটু করেছি। … আমি ভাবছি এটা আমার আরেকটা পেশা হতে পারে।’ তাঁর ট্রেনারের হাতেই একটি ট্যাটু এঁকেছেন ইরা। মুসলিম কট্টরপন্থীদের অনেকেই ইরার ওই ছবিতে কমেন্ট করেছেন, ‘এটা হারাম’।

এই পোস্টটি সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০১৯, সংবাদ বাংলা
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: The IT King