এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা থেকে চার করোনা রোগীকে সরিয়ে নিল তুরস্ক

0
34
এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা থেকে চার করোনা রোগীকে সরিয়ে নিল তুরস্ক

ঢাকা থেকে করোনা আক্রান্ত চার জনকে বিশেষ এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে নিয়ে গেছে তুরস্ক সরকার। বাংলাদেশ থেকে তাদের দেশের এক নাগরিক এবং তার বাংলাদেশি স্বামী (তুরস্ক প্রবাসী) ও  দুইসন্তানসহ ৪ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে দেশে সরিয়ে নিয়েছে।

রবিবার তুরস্ক থেকে আসা দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যবস্থা করা একটি এয়ার এম্বুলেন্স ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাদের নিয়ে আবার ফিরে যায়।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ এইচ এম তৌহিদ উল আহসান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বিমানবন্দরের একটি সূত্র জানায়, ইস্তাম্বুল থেকে রওনা হয়ে রবিবার সকাল ৮.৪০ মিনিটে ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দের এয়ার অ্যাম্বুলেন্সটি অবতরণ করে। সেখান থেকে ৪ রোগীকে নিয়ে সকাল ১০.৩০ মিনিটে আবার তুরস্কের পথে উড়াল দেয়। আসা-যাওয়ার পথে সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাত্রা বিরতি করে অ্যাম্বুলেন্সটি।

বাংলাদেশে তুরস্ক দূতাবাসের বিবৃতিতে জানায়, ‘তুর্বা আহসান, তুর্কি নাগরিক, তার বাংলাদেশি স্বামী মোসাদ্দিক আহসান এবং তাদের তিন বছরের যমজ হুমা ও জিয়াদকে একটি এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা থেকে তুরস্ক সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।’

বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান তুরান এবং মিশনের উপ-প্রধান এনিস ফারুক এরদেম বিমানবন্দরে তাদের বিদায় জানান। 

বিবৃতিতে রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘তুরস্ক ২০০৮ সাল থেকে বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে উপস্থিত নাগরিকদের জন্য বিনামূল্যে এয়ার অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা সরবরাহ করছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘করোনাভাইরাস মহামারীর প্রেক্ষিতে এই বছর তুরস্ক তাদের জরুরি স্বাস্থ্য পরিস্থিতির কারণে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে সারা বিশ্বে থেকে ২১১ জন নাগরিককে সরিয়ে নিয়েছে। যে কোনো তুর্কি নাগরিক যে কোনো কারণে করোনাভাইরাসের প্রয়োজনীয় চিকিত্সা গ্রহণ করতে অক্ষম যারা তাদের সরকার এই পরিষেবা দিচ্ছে। রবিবার তুরস্কে শুরু হওয়া ঈদের ছুটিতেও এই পরিষেবাগুলি নিরবচ্ছিন্নভাবে অব্যাহত রয়েছে।’

এর আগে ২১ এপ্রিল তুর্কি এয়ারলাইনসের চার্টার্ড ফ্লাইটে প্রায় ১৫৪ জন তুর্কি নাগরিক বাংলাদেশ ত্যাগ করেছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here